বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:২১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যেগে ইফতার সামগ্রী বিতরণ হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসের সামনে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে মাক্স বিতরনে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন,সভাপতি নয়ন,  সাধারন সম্পাদক রাজু কুমিল্লা-৫ আসনে আলোচনার শীর্ষে এহতেশামুল হাসান ভূঁইয়া রুমি লালমনিরহাট সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্দ্যোগে হাফেজি মাদ্রাসায় ইফতার বিতরণ  নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আইম্যাক ও আইপ্যাড প্রো আনছে অ্যাপল সর্বাত্মক লকডাউনে, সর্বহারা দিনমজুররা তরুণীকে হত্যার পর ড্রামে ভরে ডোবায় ফেলেন কনস্টেবল নামাজ, রোজা ও কোরআন পড়ার সুযোগ চান মামুনুল হক

জলঢাকায়  ভুট্টা চাষে  চাষীদের মাঝে এখন  উৎসাহ উদ্দীপনা! 

নীলফামারী জলঢাকা উপজেলার  বিভিন্ন ইউনিয়নে এখন ভুট্টা চাষে কদর বেড়েছে কৃষকদের। বেশী ল্যাভাংশ পাওয়ার আশায়
ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়ন  নেকবক্ত চর অঞ্চলের কৃষকেরা  এখন আর পিছিয়ে নেই।যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বেশি লাভের আশায়  আগাম ভুট্টা চাষে ঝুঁকছেন তাৱা। গতকাল
বুধবার কৃষক  রশিদুল ইসলাম  (৫৫) এর সাথে কথা বলে জানা যায়,এই অঞ্চল ভুট্টা চাষের জন্য  খুবই উপযোগী  এবং বিঘাপ্রতি ৪০ থেকে ৫০
 মণ ভুট্টা  পাওয়া যায় এবং আগাম ভুট্টা লাগানোর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন,যত আগে ভুট্টা রোপন করা যায়, তত আগে ভুট্টা জমি থেকে তোলা যায় এবং দামটাও বেশ ভালো পাওয়া যায়।এছাড়া এই ভুট্টার পাতা গো-খাদ্য,গাছ ও মোচা জ্বালানি হিসেবে ও ব্যবহার করা যায়।
 এছাড়াও  এ ইউনিয়নের  কৃষক  শহিদুল ষাট শতক, মজিদ প্রায় তিন বিঘা, মাকুল্লা সতেৱ শতক, রুবেল আটাশ শতক, মশিউর ষাট শতক  জমিতে আগাম ভুট্টা রোপন করেছে। যা ইতিমধ্যে ভুট্টার গাছ প্রায় এক ফিট এর মত  হয়ে গেছে।
  তাছাড়া কৃষকদের সাথে কথা বলে আরো বেশ কিছু তথ্য  পাওয়া যায়। কৃষক রহিদুল বলেন, আমরা মুখ্য সুখ্য মানুষ আমাদের পিতা মাতারা দরিদ্র হওয়ায়  আমরা বেশী দূর লেখাপড়া করতে পারি নাই। যার করণে পেশা হিসেবে আমাদের কৃষিকেই বেছে নিতে হয়েছে।তাই সরকারিভাবে যদি আমাদের কে এলাকাভিত্তিক  প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। কৃষি বিষয়ে আমাদের সঠিক ধারণা দেওয়া হয় এবং সরকারিভাবে আমাদের  সাৱ ও  উন্নত মানের বীজ এর ব্যবস্থা করে দেওয়া হয় তাহলে আমরা কৃষকরা উৎসাহিত হব এবং ভালো ফসল ফলাতে পারব এতে করে একদিকে যেমন দেশের  ভুট্টার চাহিদা পূরণ হবে অন্যদিকে আমাদের অর্থনৈতিক চাহিদাটাও মিটবে আমরা অর্থনৈতিক ভাবে সচ্ছল হবো আমাদের পরিবারকে নিয়ে সুখে শান্তিতে থাকতে পারবো।
 এবিষয়ে  কৃষি  কর্মকর্তা শাহ মো:মাহফুজুল হকের সাথে কথা বলে জানা যায়,চলতি মৌসুমে  উপজেলায় ১৮৯০ হেক্টর  জমিতে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে যার উৎপাদন ক্ষমতা  প্রায়  ২০ হাজার  দুইশত  মেট্রিক টন।  এছাড়াও তিনি আরো বলেন ,আপনারা ইতিমধ্যে জেনে থাকবেন  আমাদের পূর্বে কোন কৃষি  প্রশিক্ষণের জন্য একক ভাবে কোন ভবন ছিল না।আমরা  ইতিমধ্যে  এ উপজেলার কৃষকদের কথা বিবেচনা করে  দুই  তলা বিশিষ্ট একটি ভবন  নির্মাণ করেছি  সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং নিচতলায় প্রশিক্ষণের জন্য একটি  কক্ষেৱ ব্যবস্থা করা হয়েছে।আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি এ   উপজেলার  সমস্ত কৃষকদের কে  প্রশিক্ষণের আওতায়  এনে কৃষি বিষয়ে  উন্নত মানের প্রশিক্ষণ  মাধ্যমে ধারনা দিতে

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।