শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৭:০১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বালিয়াডাঙ্গীতে আ’লীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ ব্র্যাক কর্তৃক নারীর ক্ষমতায়নে স্থানীয় সরকার শক্তিশালী করনে উজ্জীবক ফোরাম গঠন ফকিরের তকেয়া সেচ্ছাসেবকদের আয়োজনে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় সলঙ্গায় মৎস্যজীবী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত লালমনিরহাটে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন দেবহাটায় “এসো পাশে দাঁড়াই” এর কমিটি গঠন ডুমুরিয়ায় নির্যাতনের শিকার ভুক্তভোগীর পাশে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ব্র্যাক রাজপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যেগে ইফতার সামগ্রী বিতরণ হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসের সামনে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে মাক্স বিতরনে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ

অভিনেতা কাদেরের মৃত্যুর খবর গুজব

অভিনেতা আব্দুল কাদেরকে বর্তমানে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের আইসিউতে রাখা হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা একটু ভালো। এরইমধ্যে বুধবার দিবাগত রাতে আব্দুল কাদেরের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিষয়টি নিয়ে বিস্মিত কাদেরের পরিবার।

আব্দুল কাদেরের পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম জেমি জানান, তার শ্বশুর করোনায় আক্রান্ত হননি। এছাড়াও অবাক হয়েছেন শ্বশুরের মৃত্যুর গুজব ছড়ানোয়।

জেমি বলেন, একজন মানুষ মৃত্যুর সঙ্গে প্রতিমুহূর্তে যুদ্ধ করছেন৷এসময় তার জন্য দোয়া না করে অনেকে মেতেছেন মৃত্যুর গুজব ছড়ানোয়৷ এ নোংরামির কোনো মানে নেই৷ বাবা আল্লাহর রহমতে একটু ভালো আছেন৷ আজ (২৪ ডিসেম্বর) তাকে আইসিইউ থেকে কেবিনে নেওয়া হতে পারে৷ সবাই উনার জন্য দোয়া করবেন।

অভিনেতা আব্দুল কাদেরের ক্যান্সার ফোর স্টেজে রয়েছে৷ এ বিষয়ে জেমি বলেন, বাবার ব্যাকপেইন ছিল। বেশ কিছুদিন ধরে আমরা দেশের বড় বড় হাসপাতালগুলোয় গিয়েছি। বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেও কেউ বাবার ব্যাক পেইনের কারণ উদঘাটন করতে পারলেন না। সর্বশেষ পুরো শরীর সিটি স্ক্যান করে জানা যায় বাবার টিউমার হয়েছে। এরপর আমরা ভেতরে ভেতরে বাবাকে নিয়ে চেন্নাইয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করি। সেখানে গিয়ে চেকআপ করা হলে জানতে পারি বাবার ক্যান্সার। শুধু তা-ই নয়, সেটা পুরো শরীরে ছড়িয়ে গেছে।

ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে ভারতের চেন্নাইয়ের ক্রিস্টিয়ান মেডিক্যাল হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন আব্দুল কাদের। এরেপরেই নেয়া হয় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।