মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০২:২৮ অপরাহ্ন

করোনার ছোবল থেকে বাদ পড়ল না অ্যান্টার্কটিকাও

অনলাইন ডেস্ক |
  • প্রকাশের সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০

করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই অ্যান্টার্কটিকায় কড়া নিয়ম জারি করা হয়
এত দিন বরফ ঘেরা অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ ছিল করোনা-মুক্ত একমাত্র স্থান। এবার পৃথিবীর সেই শেষ প্রান্তেও মারণভাইরাস ছোবল হানল।

চিলির সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়, বার্নাডো ওহিগিন্স বেসে থাকা অন্তত ৩৬ জন আক্রান্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ২৬ জন সেনা সদস্য ও বাকিরা স্বাস্থ্যকর্মী।

আরও বলা হচ্ছে, চলতি সপ্তাহে বরফ ঠান্ডা সমুদ্র ও হিমশৈল দিয়ে ঘেরা একটি গবেষণা কেন্দ্র থেকে সব স্বাস্থ্যকর্মী ও সেনা অফিসারদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাদের আলাদাভাবে কোয়ারেন্টাইনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অ্যান্টার্কটিকার উত্তর প্রান্তে বরফের পাহাড়ের শীর্ষে রয়েছে একটি গবেষণা কেন্দ্র। চিলি সেনাবাহিনীর অন্তর্গত এই কেন্দ্রের এক কর্মকর্তা জানান, আক্রান্ত সবাইকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। তাদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তবে কারো শরীরে তেমন কোনো জটিলতা পাওয়া যায়নি।

করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই অ্যান্টার্কটিকায় কড়া নিয়ম জারি করা হয়। বহিরাগত ও পর্যটকদের জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। গবেষণা কেন্দ্রের কর্মীর সংখ্যাও কমিয়ে দেওয়া হয়। সেই কড়া নিয়ম ভেঙেও করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ল ওই মহাদেশে।

ব্রিটিশ অ্যান্টার্কটিকা সার্ভের গবেষকেরা জানিয়েছেন, এ এলাকায় মোট ৩৮টি গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে। সেখানে মোট ১ হাজার বিজ্ঞানী কাজ করেন। যদিও শীতের আগে ১০০ জনকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তবে গ্রীষ্ম ও বসন্তে পর্যটন শুরু হওয়ার পরই সেখানে সংক্রমণ হতে শুরু করে। অ্যান্টার্কটিকার ম্যাগালানেসে জনসংখ্যা বেশি থাকায় সেখানে অনেক সংক্রামিতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছিল। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে গবেষণা কেন্দ্রের দুই সেনা অফিসারের করোনা ধরা পড়ে।

চিলির নৌবাহিনী জানায়, নভেম্বর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে অ্যান্টার্কটিকা এলাকায় একটি জাহাজ আসে। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় মালপত্র নামিয়ে ফের জাহাজটি ফিরে যায়। সেই জাহাজে ২০৮ জন ক্রু ছিল। জাহাজ ফিরে যাওয়ার পর তিনজনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। তবে জাহাজের ক্যাপ্টেনের বক্তব্য, জাহাজ পাড়ি দেওয়ার সময় কোনো কর্মীর শরীরে কভিড-১৯ ধরা পড়েনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
কারিগরি সহযোগিতায়: আরএসকে হোস্ট
01779911004