শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৬:০৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বালিয়াডাঙ্গীতে আ’লীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ ব্র্যাক কর্তৃক নারীর ক্ষমতায়নে স্থানীয় সরকার শক্তিশালী করনে উজ্জীবক ফোরাম গঠন ফকিরের তকেয়া সেচ্ছাসেবকদের আয়োজনে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় সলঙ্গায় মৎস্যজীবী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত লালমনিরহাটে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন দেবহাটায় “এসো পাশে দাঁড়াই” এর কমিটি গঠন ডুমুরিয়ায় নির্যাতনের শিকার ভুক্তভোগীর পাশে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ব্র্যাক রাজপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যেগে ইফতার সামগ্রী বিতরণ হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসের সামনে শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে মাক্স বিতরনে হাবিপ্রবি ছাত্রলীগ

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

রংপুরের মিঠাপুকুরে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে  মো: আশাদুজ্জামান খান ১৮ মে (মঙ্গলবার) নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলন করেন ৷

এ সময় আশাদুজ্জামান খান বলেন- নিজের ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তার সাথে সুন্দর জীবন যাপনের জন্য বাধ্য হয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করতে হয়েছে ৷ কারন আপনারা অনেকে অবগত রয়েছেন সাম্প্রতিক সময়ে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে, মিথ্যা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ দিয়ে, ব্যবসা ধ্বংস করে দেওয়া এবং আমাকে ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে আসছে একটি মহল ৷

তিনি বলেন- আমি ২০১৭ সালে এজেন্ট ব্যবসা শুরু করি। করোনা মহামারী শুরুর দিকে আমার কিছু স্টাফ ও সুদ কারবারী তাদের প্রদানকৃত অর্থ যা দীর্ঘ সময়ের জন্য দিয়েছিল। কিন্তু তারা কয়েক মাস না যেতেই আমার কাছ থেকে তাদের প্রদানকৃত অর্থ ফেরৎ দিতে বলে। যখন আমি এই অল্প সময়ে ফেরৎ না দিতে চাই তখন আমার প্রতিষ্ঠানে অংশীদারিত্ব দাবী করেন। এক পর্যায়ে তারা বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদান করেন ৷

তাদের হুমকি ও অব্যাহত চাপের মুখে আমি অধিক ক্ষতি স্বীকার করেও অনেকের অধিকাংশ টাকা পরিশোধ করি। বাদ বাকি টাকা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে যা সময় সপেক্ষে ব্যাপার। তবে কয়েক জন অফিস স্টাফ ও সুদ কারবারিদের মিথ্যা ষড়যন্ত্র আমাকে পথে বসিয়েছে। এখন অফিস গুলো বিক্রি বা হস্তান্তর করে বাকি অর্থ পরিশোধ করা সম্ভব, অন্যথায় নয়।

তিনি আরও বলেন- আমার কাছে যারা সুদে বিনিয়োগ করেছিল তারা মূলত আমার সাথে ব্যবসা করেছিল। তারা উচ্চহারে সুদ আদায় করত। তাদের চাহিদা মত সুদ প্রদান না করলে টাকা উঠানোর চাপ দিত ৷ তাদের হেনস্তার কারনে আমি আমার ব্যবসা পরিচালনা করতে পারছি না। তাদের অনেকেই আমার অফিসের অংশীদার হিসাবে ব্যবসার মালিকানা চাইত ৷ তারা ষড়যন্ত্র করে আমার প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংসের মুখে দাড় করিয়েছে।

আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালায় এই যে আমি ৬ কোটি টাকা আত্মসাত করেছি ৷ তারা আমার ৫০টির ও অধিক চেক ও ৯টি অলিখিত স্বাক্ষরিত নন জুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্প পেশী শক্তি দ্বারা দখল করে রেখেছে। আমি থানায় জিডি করতে পাঠাই চেক ও ষ্ট্যাম্পের ব্যাপারে কিন্তু বেশি চেকের কথা বলে জিডি গ্রহণ করা হয় নাই। তারা আমাকে অফিসে বসতে না দিয়ে সেগুলো লোপাট করে নিয়ে যায়। তাদের অবিরত হুমকির মুখে আমি ৩ মাস যাবত অফিস করতে পারছিনা।

অভিযোগকারী/সুদকারবারি বাড়িতে আসে এবং সঙ্গে কিছু দেশীয় অস্ত্র নিয়ে যান, আমার বাবা তাদের খারাপ আচরন প্রদর্শন দেখে ভয়ে ঘরে ঢুকে পড়েন। তখন রান্নাঘরের টিনের বেড়া কেটে বের করে নিয়ে যাওয়ার চেস্টা করেন ৷

তিনি জানান- এই চক্রে জড়িত আছেন, (১) মো: লালন মিয়া, মোঃ আল-আমিন মিয়া, মোঃ মাজহারুল ইসলাম, রূপক মজুমদার, মোছাঃ নুরানী পারভীন আনছারী, ফজলুল হক প্রধান, মোঃ আসাদুজ্জামান (লাল দিঘী) এবং অন্যান্য সুদি কারবারি ও তাদের ভারাটে সন্ত্রসীরা।

আমার বিভিন্ন অফিস গুলোতে অর্থ লেনদেনের জন্য প্রদানকৃত যা পূর্ব থেকে স্বাক্ষরিত চেক যেগুলো আমার কিছু মিথ্যাবাদী স্টাফ ও মুনাফাখোর সুদ কারবারি মিলে তাদের দখলে রেখেছে। সেগুলা উদ্ধারে আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসার , অফিচার্জ ইনচার্জ ও সাংবাদিকবৃন্দের নিকট সর্বাত্বক সহযোগিতা কামনা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।